শিক্ষার জন্য মাতৃভাষা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ: প্রধানমন্ত্রী « বিডিনিউজ৯৯৯ডটকম

শিক্ষার জন্য মাতৃভাষা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ: প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন নিউজ ডেস্ক
আপডেটঃ ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ | ৯:৩২
অনলাইন নিউজ ডেস্ক
আপডেটঃ ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ | ৯:৩২
Link Copied!
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা -- বিডিনিউজ৯৯৯ডটকম

মাতৃভাষায় জ্ঞান অর্জনের সুবিধার কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মাতৃভাষায় শিক্ষা নিতে পারলে সেই শিক্ষা নেওয়া, জানা ও বোঝা অনেক সহজ হয়।

আজ বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২৪ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

এ-সময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেন, শিক্ষার জন্য মাতৃভাষা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। মাতৃভাষায় শিক্ষা নিতে পারলে সেই শিক্ষা নেওয়া, জানা ও বোঝা অনেক সহজ হয়। তবে বিশ্ব যেহেতু অনেক কাছাকাছি চলে এসেছে, সেখানে কর্মক্ষেত্রে আমাদের অন্য ভাষা শেখারও প্রয়োজন আছে।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, জীবন-জীবিকার জন্য হয়তো অনেক ভাষা শিখতে হয়। কিন্তু মাতৃভাষা সংরক্ষণ করা প্রত্যেক জাতির কর্তব্য বলে আমি মনে করি।

মাতৃভাষা সংরক্ষণের ওপর গুরুত্বারোপ করে শেখ হাসিনা বলেন, সারা বিশ্বের বিভিন্ন মাতৃভাষা হারিয়ে যাচ্ছে। সেগুলো যাতে হারিয়ে না যায় সেগুলো সংরক্ষণ করা, গবেষণা করা … সেই লক্ষ্য নিয়ে আমরা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট গড়ে তুলি।

বাংলা ভাষাকে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের মাতৃভাষাকে রক্ষা করে, মাতৃভাষার চর্চা এবং মাতৃভাষাকে আরও শক্তিশালী করে, আমাদের শিল্পকলা, সাহিত্য অনুবাদ করে সারা বিশ্বের ছড়িয়ে দিতে হবে। বাঙালি জাতি যে তার ভাষার জন্য জীবন দিয়েছে, তা সবার সামনে তুলে ধরা আমাদের কর্তব্য।

বিজ্ঞাপন

এছাড়া আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট ও বাংলা একাডেমিকে নিজেদের মধ্যে সমন্বয় করে কাজ করার পরামর্শ দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট ও বাংলা একাডেমি এ দুটো প্রতিষ্ঠানকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে, একে অপরের পরিপূরক হয়ে কাজ করতে হবে।

সারা বিশ্বে যুদ্ধ বন্ধের আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, বাঙালি শান্তিতে বিশ্বাস করে। আমরা আর যুদ্ধ চাই না, আমরা শান্তি চাই। সারা বিশ্বে যুদ্ধ বন্ধ হোক, অস্ত্র প্রতিযোগিতা বন্ধ হোক। এ অস্ত্র প্রতিযোগিতায় যে অর্থ (খরচ করা হচ্ছে), তা মানুষের জ্ঞান-বিজ্ঞান, গবেষণা, জলবায়ু পরিবর্তন, শিশু, নারী, শিক্ষা, স্বাস্থ্যে ব্যবহার করা হোক।

তিনি আরো বলেন, শান্তি থাকলেই কিন্তু প্রগতি আসে, উন্নতি হয়, এগিয়ে চলা যায়। সেটিই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য, এভাবেই আমরা এগিয়ে যেতে চাচ্ছি। দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাব, এটিই আমাদের প্রতিজ্ঞা।

বিষয়ঃ: