জুনে ৩৫ মাসের সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স, বেড়েছে রিজার্ভ « বিডিনিউজ৯৯৯ডটকম

জুনে ৩৫ মাসের সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স, বেড়েছে রিজার্ভ

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেটঃ ২ জুলাই, ২০২৪ | ২:২৭
নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেটঃ ২ জুলাই, ২০২৪ | ২:২৭
Link Copied!
রেমিট্যান্সে জোয়ার -- বিডিনিউজ৯৯৯ডটকম

নানামুখী উদ্যোগের ফলে বৈধপথে রেমিট্যান্স আসায় ফের জোয়ার লক্ষ করা গেছে। গত জুন মাসে রেমিট্যান্স এসেছে প্রায় ২ দশমিক ৫৪ বিলিয়ন ডলার, যা গত ৩৫ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ।

এর আগে একক মাস হিসাবে করোনাকালে সর্বোচ্চ রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছিল। ২০২০ সালের জুলাই মাসে রেমিট্যান্স এসেছিল প্রায় ২ দশমিক ৬০ বিলিয়ন। একইভাবে ২০২৩-২৪ অর্থবছরে দেশের ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স সংগ্রহ, ২৩ দশমিক ৯২ বিলিয়ন ডলার। তার আগে ২০২০-২১ অর্থবছরে রেমিট্যান্সের রেকর্ড ছিল ২৪ দশমিক ৭৭ বিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য বিশ্লেষণে এ চিত্র উঠে এসেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, জুন মাসে ২ দশমিক ৫৪ বিলিয়ন রেমিট্যান্স এসেছে, যা ৩৫ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ। বাংলাদেশি মুদ্রায় (প্রতি ডলার ১১৮ টাকা ধরে) যার পরিমাণ প্রায় ২৯ হাজার ৯৯৫ কোটি টাকা। যদিও এর আগের বছরের জুন মাসে এসেছিল ২১৯ কোটি ৯০ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স। আর ২০২৩-২৪ অর্থবছরের পুরো সময়ে এসেছে প্রায় ২৩ দশমিক ৯১ বিলিয়ন ডলার।

বিজ্ঞাপন

এর আগে ২০২০-২১ অর্থবছরের (করোনাকালে) জুলাই মাসে দেশের ইতিহাসে রেকর্ড পরিমাণ ২৫৯ কোটি ৮২ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স এসেছিল। অন্যদিকে ২০২৩-২৪ অর্থবছরে ২৩ দশমিক ৯২ বিলিয়ন ডলার আসে। এর আগের অর্থবছরে এসেছিল ২ হাজার ১৬১ কোটি ডলার। সে হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে রেমিট্যান্স বেড়েছে ২৩১ কোটি ডলার।

পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউট অব বাংলাদেশের (পিআরআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, অর্থ পাচারের কারণে দেশের রেমিট্যান্স কাঙ্ক্ষিত হারে বাড়ছে না। পাচারকারীরা বিদেশে রেমিট্যান্সের ডলার কিনে নিচ্ছে। আর বাংলাদেশে তা টাকায় পরিশোধ করছে। তাই রেমিট্যান্স বাড়াতে হলে হুন্ডির তৎপরতা থামাতে হবে। অর্থ পাচার থামানো গেলে রেমিট্যান্স দ্বিগুণ হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত বছরের জুনে এসেছিল ১ দশমিক ৮৪ বিলিয়ন ডলারের প্রবাসী আয়। ২০২১ সালের জুনে এসেছিল ১ দশমিক ৯৫ বিলিয়ন ডলার। ২০১৯ ও ২০২০ সালের জুনে এসেছিল যথাক্রমে ১ দশমিক ৩৭ বিলিয়ন ও ১ দশমিক ৮৩ বিলিয়ন ডলার। আর বিদায়ী অর্থবছরের মে মাসে প্রবাসী আয় এসেছিল ১ দশমিক ৬৯ বিলিয়ন ডলার।

বিজ্ঞাপন

জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) তথ্যমতে, চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে বাংলাদেশ থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কর্মী গেছেন ২ লাখ ২৬ হাজার ৮৩৭ জন। আর ২০২৩ সালে বাংলাদেশ থেকে রেকর্ড ১৩ লাখ ৫ হাজার ৪৫৩ জন কর্মী বিভিন্ন দেশে কাজের জন্য গেছেন। কিন্তু সেই অনুপাতে দেশের প্রবাসী আয় বাড়েনি। বর্তমানে সব মিলিয়ে বিদেশে অবস্থানকারী প্রবাসীর সংখ্যা ১ কোটি ৬৩ লাখ ২ হাজার ৩৬০ জন। যদিও রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোর দাবি, প্রবাসী বাংলাদেশি ১ কোটি ৩০ লাখ। সে হিসাবে মে মাসে গড়ে ৩০ হাজারের বেশি হওয়ার কথা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের একজন সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, জুন মাসে ঈদুল আজহা অনুষ্ঠিত হয়। আর আগে মে মাসে এক দিনে ডলারের দাম ৭ টাকা বৃদ্ধি করে ১১৭ টাকা করা হয়। এতে বিদেশ থেকে ডলার পাঠানো বেড়ে গেছে।

বিষয়ঃ

সর্বশেষ: